আমা’র বয়স ৩৬, এটাকে লুকাতে হবে কেন? আমি কিন্তু বয়স এবং আমা’র বাচ্চা কোনোটাই গো’পন করিনি কখনো। এই নিয়ে আমা’র কোনো ট্যাবু নেই। এই ট্যাবুকে ভা’ঙতে হবে।

নিজে'র বয়স নিয়ে এভাবেই সহজ সরল উচ্চারণ লাক্স তারকা আজমেরী হক বাঁধনের। রবিবার ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপে এসেছিলেন বাঁধন। এখানেই নানা বিষয় নিয়ে কথা বলেন তিনি। স’ম্প্রতি ‘মা’রিয়া’ নামের একটি ছবিতে মূখ্য চরিত্রে অভিনয় ক’রেছেন বলে গু’ঞ্জন শোনা যায়, নতুন জীবন শুরু ক’রতে যাচ্ছেন কি না সে বিষয়েও স্পষ্ট কথা বললেন। অর্থাৎ বাঁধন যেন ঝ’কঝকে আয়না যেখানে তাকালেই নিজে'র পরিচ্ছন্ন মুখ দেখা যায়। টলটলে জল, যার দিকে তাকালে গ’ভীর পর্যন্ত ঘুরে আসে চোখ।

বাঁধন একা মা। এই দেশে একা মায়েদের চলার পথ খুব একটা সহজ নয়। তাই জীবন নিয়ে নতুন করেই ভেবে থাকেন অধিকাংশ মানুষ। এমনই প্রশ্ন করা হয়েছিল বাঁধনকে মানে বিয়ে করার প’রিকল্পনা রয়েছে কি না বিয়ে করবেন কি না। বাঁধন খুব সহজ ভাবে নিজে'র চিন্তা শেয়ার করেলেন। বললেন, ‘আমি ফের বিয়ে করবো বা আমা’র লাইফে আরেকজন মানুষের প্রয়োজন এটা আমি এতো বছর ফিল করিনি। কিন্তু এখন মনে হচ্ছে কেউ একজন পাশে থাকলে ভালো হতো। এরকম না যে আমা’র আর আমা’র বাচ্চার দায়িত্ব নিতে হবে, এটা প্রয়োজন নেই। পথ চলার সময় কেউ একজন পাশে থাকলো, পাশে থেকে বলল, আছি তো তোমা’র সাথে- এমন হলে ভালোই হতো।’

ক’দিন আগে একটা সিনেমায় কাজ করেছে। বেশ চাউর হয়েছে এই খবর। এটা নিয়েও প্রশ্ন করলাম। সিনেমায় কাজ করলেন অথচ গো’পন করে গে’লেন পুরো বিষয়টা, কেন? লাক্স তারকার কাছে সুন্দর ব্যা’খ্যা রয়েছে বলেন। সে ব্যাখ্যা দিলেন। ‘আ'সলে যাদের সাথে কাজটা আমি করেছি, একেকজন মানুষের কাজে'র প্যাটার্ন একেক রকম হয়। একেক জন মানুষের প্র’চারের ধ’রন একেক রকম হয়।

আম’রা তো সব কিছুতে অভ্যস্ত হতে শিখি না, যখনই কেউ আ’লাদা কিছু করে তখনই অনেকে অনেক কথা বলা শুরু করে। ওদের কাজে'র ধ’রন আ’লাদা, ওদের প্র’চারের ধ’রন আ’লাদা। ওদের মনে হয়েছে কাজটা একটা স’ম্মানজনক জায়গায় যখন যাবে তখন বিষয়টা নিয়ে কথা বলবে, চ’রিত্রটাকে সামনে নিয়ে আসবে। ওটা ওদের স্ট্র্যাটেজি। আমি ফিল্ম করেছি এটা কখনও অস্বী’কার করিনি, কিন্তু বিষয়টি নিয়ে এখন কথা বলবো না সেটা বলে নিয়েছি।’

নতুন এই চলচ্চিত্রকে জীবনের গু’রুত্বপূর্ণব অধ্যায় হিসেবে অভিহিত করলেন বাঁধন। বললেন, ‘আমি প্রথমেই বলে নিয়েছি যে ছবির ডিটেলস বলতে পারবো না। তবে এই ছবিতে কাজ ক’রতে গিয়ে বুঝেছি জীবন বোধ। ছবিটা আমাকে নতুনভাবে নিজে'র সাথে নিজে'র পরিচয় করিয়ে দিয়েছে। জীবন দ’র্শনের অনেক পরিবর্তন এনেছে। কাজে'র প্রতি ভালোবাসা বাড়িয়ে দিয়েছে। আপনারা জা’নেন আমি কাজে'র প্রতি অনেক সিনসিয়ার। কিন্তু আমি কখনো কাজে'র প্রতি ভালোবাসা ছিল না, এর কারণ হলো আমি জীবনযু’দ্ধে এতো বেশি জর্জরিত ছিলাম যার কারণে ভালোবাসাটা হয়ে ওঠেনি, বলা যায় এই ছবিটা আমাকে নতুনভাবে জ’ন্ম দিয়েছে।

আলোচনা প্রস’ঙ্গে বয়সের কথা উল্লেখ করলেন। বয়স বলা-কওয়া নিয়ে একদম জড়তা নেই এই অভিনেত্রীর। বাঁধন বলেন ‘আমা’র ৩৬ বছরের জীবনে দুইটা টার্নিং পয়েন্ট একটা হলো লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার হওয়া আরেকটা হলো এই ছবিটা। গত এক বছরের এই ছবিতে দেওয়া সময়টা আমাকে আ'সলে কোথায় নিয়ে যাবে জানি না, তবে এটা একটা আমা’র জীবনের বড় টার্নিং পয়েন্ট।

৩৬ বছর উচ্চারণ ক’রতেই বাঁধনকে বলা হলো বয়স বলে দিলেন? বাঁধন দ্বিধাহীন কণ্ঠে বললেন, ‘হ্যাঁ, আমি কিন্তু বয়স এবং আমা’র বাচ্চা কোনোটাই গো’পন করিনি কখনো। এই নিয়ে আমা’র কোনো ট্যাবু নেই। এই ট্যাবুকে ভাঙতে হবে। আম’রা বয়স বলি না বলে আমাদেরকে আরো বেশি চা’পানোর চেষ্টা করা হয়। তোমা’র বাচ্চা আছে বলে ক্যারিয়ার ন’ষ্ট হবে, বয়স্ক মনে করবে সময়ের সাথে বয়স তো হবে। এটা স্বা’ভাবিক একটা প্রক্রিয়া, এটা যে স্বা’ভাবিক এটাকে সেভাবেই নিতে হবে।

বাঁধনকে নির্বাচনী ক্যাম্পেইনেও দেখা গেছে। রাজনীতিতে আসার ইচ্ছে আছে কি না জানতে চাইলে বলেন, ‘আ'সলে রাজনীতি নয়। এই দেশে আমা’র জ’ন্ম, এই দেশকে ভালোবাসতে হলে কোনো উপলক্ষ্য লাগে না, রাজনীতি লাগে না। দেশের জন্য কিছু ক’রতে চাইলে রাজনীতি ক’রতেই হবে এমন কোনো কথা নেই। আমা’র বাচ্চাকে আ’ইনিভাবে ফি’রে পেয়েছি, এটার জন্যই এই দেশের, এই দেশের কিছু মানুষের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। সেভাবে আমা’র রাজনীতিতে আসার সম্ভাবনা নেই।’