করনোভা'ইরাসের সংক্র’মণ প্র’তিরো’ধে সামাজিক দূ'রত্ব বজায় রাখার বিকল্প নেই। অ'ন্তত তিন ফুট দূ'রত্ব বজায় রেখে চলতে বলা হয়েছে। এতে এক জনের শ’রীরে ঠাঁই নেয়া ভা'ইরাস অন্যজনের সংস্প’র্শে আসতে পারবে না।

করো'না প্র’তিরো’ধে মানুষের মাঝে সচে’তনতাও বেড়েছে অনেক। তবুও কেউ কেউ আছেন এটাকে গু’রুত্ব দিচ্ছেন না। এজন্য সচে’তন মানুষ বাধ্য করছেন সামাজিক দূ'রত্ব মেনে চলতে।

দেখা গেছে শহরের অনেক জায়গায় দোকানের সামনে তিন ফুট দূ'রত্বের চিহ্ন এঁকে দেওয়া হয়েছে। ক্রেতারা আ'সলে ওই চি’হ্নিত স্থানে দাঁড়াবেন। যেন এক জন অন্য জনের গা ঘেঁষে না দাঁড়াতে পারে।

এই কাজে ভলন্টিয়াররা মুদি দোকান, স্থা’নীয় কাঁচাবাজার ও ফার্মেসিগুলোর সামনে মা’র্কিং করার কাজ করে। দোকান মালিকদের জা’নানো হয় যে দুইজনের মাঝে ১ মিটার বা ৩ফিটের দূ'রত্ব বজায় রেখে কেনাকাটা করার জন্য ক্রেতাদের অনুরো’ধ ক’রতে।

আপনিও আপনার এলাকায় এই কাজটি ক’রতে পারেন। এভাবেই সবাই এগিয়ে এলেই আম’রা করনোর সংক্র’মণ থেকে বাঁচতে পারবো। সবাই সু’স্থ্য থাকি। করো'না মো’কাবেলায় এগিয়ে আসি।