জনসংখ্যার দিক থেকে বিশ্বের সবচেয়ে বড় মুসলিম অধ্যুষিত দেশ ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রা দ্বীপের আচেহ প্রদেশে শরিয়া আ’ইন চালু আছে। শা’স্তি হিসেবে সেখানে বে’ত্রাঘা’ত করার পাশাপাশি মাথার চুলও কে’টে নেয়া হয়।

ঐ অঞ্চলে দীর্ঘদিন ধ’রে চলে আসা বিচ্ছি’ন্নতাবাদী আ’ন্দো’লন থামানোর লক্ষ্যে সরকার ২০০১ সালে ঐ প্রদেশের জন্য ‘বিশেষ স্বা’য়ত্তশা’সন’এর ব্যব’স্থা করার পরই ইসলামি শরিয়া আ’ইন বাস্তবায়ন শুরু হয়। এরপর ২০০৫ সালে শা’ন্তিচুক্তি সই হওয়ার পর আ’ইনের প্রয়োগ আরও জো’রালো হয়।

আচেহ প্রদেশে প্রেমে প’ড়েছিলেন এক যুবক (১৯) ও এক যুবতী (২২)। সেই প্রেম গাঢ় হতে হতে এমন এক পর্যায়ে যায় যে, তারা যৌ ন স’ম্পর্ক স্থাপন করেন। এ বিষয়টি গো’পন থাকেনি।

এই অ’ভিযোগে তাদের উভ’য়কেই একটি স্টেডিয়ামে মঞ্চ স্থাপন করে সেখানে প্র’কাশ্যে ১০০ ঘা করে বে’ত্রাঘা’ত করা হয়েছে। এ সময় উৎসুক বিপুল সংখ্যক মানুষ তা উপভো’গ করছিলেন। অন্যদিকে ব্য’থায় আ’র্তনাদ করছিলেন ওই যু’বতী। তিনি বার বার ক’রুণা ভি’ক্ষা চাইছিলেন। যুবকটি ছিল সাদা শার্ট পরা।

তাকে এতটাই জো’রে বে’ত্রাঘা’ত করা হয় যে, তাতে তার ত্বক ফে’টে র’ক্তে র’ঞ্জিত হয় শার্ট। এখানেই শেষ নয়। তাকে এ অ’পরাধের জন্য ৫ বছর জে’ল খা’টতে হবে। ঘ’টনাটি ঘ’টেছে বুধবার। এ খবর দিয়েছে বৃটেনের একটি ট্যাবলয়েড পত্রিকার অনলাইন সংস্করণ। এতে বলা হয়েছে, যখন বে’ত্রাঘা’ত করা হচ্ছিল তখন ২২ বছর বয়সী ওই যুবতী ব্য’থায় বার বার মুর্ছা যাচ্ছিলেন। তারপরও তাকে প্রহার ক’রতে থাকেন মু’খোশ পরা দ’ণ্ডদা’তারা। তিনি ক’রুণা ভিক্ষা চাইলেও শরিয়া ক’ঠোর আ’ইনের অধীনে তার শা’স্তি পূর্ণ করা হয়। বান্দা আচেহ প্রদেশের লোকসেমাউয়েতে একটি স্টেডিয়ামে এই শা’স্তি কা’র্যকর করা হয়। ব্যবহার করা হয় তেল দিয়ে পাকানো বেতের লাঠি।

উল্লেখ্য, বিয়ের আগে এমন যৌ ন স’স্পর্ক স্থাপন ইসলামিক আ’ইনে ক’ঠোর শা’স্তিযো’গ্য অ’পরাধ ওই অঞ্চলে। একই রকম শা’স্তির বি’ধান রয়েছে জু’য়া ও ম’দ পানের ক্ষেত্রেও।

ওদিকে মানবাধিকার বিষয়ক গ্রুপগুলো প্র’কাশ্যে এভাবে বে’ত্রাঘা’তকে ব’র্বর শা’স্তি বলে অ’ভিহিত করেছে। তারা ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইডোডোর কাছে এমন শা’স্তি ব'ন্ধের আ'হ্বান জা’নিয়েছে। কিন্তু আচেহ প্রদেশে বসবাস প্রায় ৫০ লাখ মুসলিমের। তারা ধ’র্মের ভিত্তিতে এমন শা’স্তিকে সমর্থন করেন। মা’র্চে সন্তান ও পরিবারের সামনে প্র’কাশ্যে ৫ দ’ম্পতিকে একইভাবে বে’ত্রাঘা’ত করা হয়েছে।

বিবাহ ব’হির্ভূ’ত যৌ ন স’ম্প’র্ক স্থাপনের অ’ভিযোগে গত বছর নভেম্বরে বে’ত্রাঘা’ত করা হয়েছে এক নারীকে। তা দেখে উৎসুক জনতা উল্লাস করেছিল। আরেকজন নারীর ক্ষেত্রে একই ঘ’টনা ঘ’টেছিল।