গতকাল (শুক্রবার) ভালোবাসা দিবসে পঞ্চমবারের মতো কন্যা সন্তানের বাবা হয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক ও অলরাউন্ডার শহিদ আফ্রিদি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে এ খুশির সংবাদ নিজেই জা’নিয়েছেন তিনি।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে এ সুখবরটি জা’নিয়ে আফ্রিদি লিখেছিলেন, ‘স্রষ্টার অসীম দয়া ও কৃপা…আমি চারজন অপরূপ কন্যার পিতা ছিলাম, এখন তিনি আমাকে পঞ্চম কন্যা উপহার দিয়েছেন, আলহামদুলিল্লাহ। শুভকাঙ্ক্ষীদের স’ঙ্গে আমি এই সুখবরটি ভাগাভাগি করলাম…#চার থেকে পাঁচ হলো।’

এবার নিজে'র মেয়ের জন্য নাম চেয়েছেন ভক্তদের কাছে। শুধু তাই নয়, সেরা নামদাতার জন্য পুরস্কারও রেখেছেন আফ্রিদি। তবে দিয়েছেন একটি শর্ত। যেহেতু তার প্রথম চার মেয়ের নামের আদ্যক্ষর ইংরেজি বর্ণের ‘এ’, তাই পঞ্চম মেয়ের জন্যও ‘এ’ দিয়েই নাম চেয়েছেন তিনি। উল্লেখ্য, আফ্রিদি প্রথম চার মেয়ের নাম যথাক্রমে আকসা, আনশা, আজওয়া এবং আসমা’রা।

এবার পঞ্চম মেয়ের জন্য নাম চেয়ে ক'রা টুইটে তিনি লি’খেছেন, ‘এটা আমা’র ভক্তদের জন্য (সুযোগ)। যেহেতু আপনারা দেখছেন যে, আমা’র মেয়েদের নাম ‘এ’ দিয়ে শুরুটা একটা রীতিতে প’রিণত হয়েছে। তাই আমাদের নতুন অতিথির জন্য ‘এ’ দিয়ে শুরু ক'রা একটি নাম বলুন। যে নাম আমি পছন্দ করবো, তিনি পুরস্কার পাবেন। তো শুরু ক'রা যাক। আকসা, আনশা, আজওয়া, আসমা’রা, আ…’

আফ্রিদির এ নাম চাওয়ার টুইটে স’ঙ্গে স’ঙ্গে মন্তব্য ক’রেছেন আফগানিস্তানের লেগস্পিনার রশিদ খান। তিনি প’রামর্শ দিয়েছেন ‘আফরিন’ নাম রাখার জন্য। মন্তব্যের ঘরে রশিদ লি’খেছেন, ‘আফরিন (নাম রাখু’ন)। এর অর্থ সাহসী।’ এরই মধ্যে প্রা'য় দেড় হাজারের বেশি মানুষ পছন্দ ক’রেছেন রশিদের এই নাম। তবে আফ্রিদি কোনো প্র’তিক্রিয়া ব্যক্ত ক'রেননি।

এদিকে চার মেয়েকে পাশে নিয়ে নতুন অতিথির স’ঙ্গে তোলা ছবিতে অভিনন্দন, দোয়া ও শুভ কামনার ব'ন্যা বইয়ে দিয়েছেন ভক্তরা। এখনও পর্যন্ত প্রা'য় ৫৭ হাজার মানুষ পছন্দ ক’রেছেন ছবিটি। মন্তব্য ক’রেছেন প্রা'য় ১১ হাজার মানুষ আর ছবিটি রিটুইট তথা শেয়ার ক’রেছেন সাত হাজারের বেশি মানুষ।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরে যাওয়া আফ্রিদি কদিন পর ৪৬ বছরে পা দেবেন। সর্বশেষ তাকে আন্তর্জাতিক আঙিনায় দেখা গেছে ২০১৮ সালের মে মাসে লর্ডসে ওয়েস্ট ইন্ডিজে'র বিপক্ষে এসিসির বিশ্ব একাদশের হয়ে খেলতে।

এরপর থেকে নিয়মিত ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্ট খেলে যাচ্ছেন আফ্রিদি। মাস কয়েক আগে খেলে গেছেন বঙ্গব'ন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগেও (বিপিএল), যেখানে তার দল ছিল ঢাকা প্লাটুন।